কোভাক্সিনঃ কেন বিতর্ক?

Reading Time: 3 minutes

শুভময় ব্যানার্জী, পিএইচডি, নিউক্র্যাড হেলথ এর প্রতিবেদন, জানুয়ারী ১৬, ২০২১

সম্প্রতি নভেল করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি করেছে বহু কোম্পানি। তাদের মধ্যে ভারত বায়োটেকের করোনভাইরাস ভ্যাকসিন “কোভাক্সিন” তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার ফলাফল ছাড়াই জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পাওয়ার পর বিতর্কের মুখে পড়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং অ্যাস্ট্রাজেনিকার তৈরি কোভিশিল্ড এবং কোভাক্সিন জানুয়ারিতে ডিসিজিআই’র (ভারতের ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল) অনুমোদন পেয়েছে, তবে, কোভাক্সিনের ফেজ -৩ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ডেটা এখনও পাওয়া যায়নি। আইসিএমআর (ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ) এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি এর সহযোগিতায় তৈরি ভারত বায়োটেকের এই করোনভাইরাস ভ্যাকসিনকে ঘিরেই স্বাস্থ্যপরিসেবা সংস্থাগুলিতে এবং বৈজ্ঞানিক মহলে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

ভারত বায়োটেকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডক্টর কৃষ্ণ এলা একটি সংবাদ সম্মেলনে স্পষ্ট জানিয়েছেন যে এই ভ্যাকসিন যথেষ্ট নিরাপদ এবং ভারত বায়োটেক ভারত ছাড়াও আরও ১২ টি দেশে এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষা চলছে। 

কোভাক্সিনকে ঘিরে কি বিতর্ক?

ভ্যাকসিনটির ফেজ -৩ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ডেটা ছাড়াও জরুরী অবস্থায় ব্যবহারের অনুমোদন ঠিক কি ভিত্তিতে দেওয়া হয়েছিল তা নিয়ে বিশেষজ্ঞরা প্রশ্ন করলে বিতর্কের সুত্রপাত হয়। 

সিডিসকো (সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন) এর সাবজেক্ট এক্সপার্ট কমিটি (এসইসি) ডিসিজিআইয়ের কাছে কোভাক্সিনের জরুরী অবস্থায় ব্যবহারের অনুমোদনের সুপারিশ করেছিল, যা কিছুদিনের আলোচনার পরে অনুমোদিত হয়। ভারতীয় জৈব-প্রযুক্তির সাহায্যে তৈরি কোভাক্সিনের জন্য ডিসিজিআইয়ের অনুমোদনের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে কোভিড-১৯ ভাইরাসের এর পরিবর্তিত স্ট্রেনের বিরুদ্ধে এটি সুরক্ষা প্রদান করতে পারে, যদিও এই অনুমোদনের পিছনে যৌক্তিকতা সম্পর্কে  যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা।

নিউক্র্যাড হেলথ নিয়ে আসছে নিউক্র্যাড হেলথ হাব – বাংলায় এক নতুন স্টার্ট আপ ,
এক বাঙালি বিজ্ঞানীর হাত ধরে। নিউক্র্যাড হেলথ হাব এর এন্ট্রেপ্রেনিউরশিপ প্রোগ্রাম এ কোনো পুঁজি না লাগিয়ে অংশ গ্রহণ করতে অথবা জানতে হোয়াট’স আপ করুন +917001105893

ভারত বায়োটেক কীভাবে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেল?

ডাঃ এলা স্পষ্ট করে বলেছেন যে ইমিউনোজনিসিটি ডেটার ভিত্তিতে কোভাক্সিনের অনুমতি  পাওয়া যায়। তিনি আরও জানিয়েছেন, হ্যামস্টার এবং বানরের উপর পরীক্ষা করে অন্যান্য ভ্যাকসিনের তুলনায় কোভাক্সিন অনেক ভালো ফলাফল দেখিয়েছে। ডাঃ এলা ব্যাখ্যা করেছেন যে ভারত বায়োটেক এখনও বেশ কিছু কাজ করার চেষ্টা করছে এবং কাজের শেষে নতুন ভাবে হিউম্যান ক্লিনিকাল ট্রায়াল প্রোটোকল জমা দিতে হবে।

কোভাক্সিন কী SARS-CoV-2 ভাইরাসের মিউট্যান্ট স্ট্রেনগুলির জন্য কার্যকর হবে?

কোভাক্সিন SARS-CoV-2 ভাইরাসের মিউট্যান্ট স্ট্রেনের জন্য কার্যকর হবে বলেই ডঃ এলার অভিমত। তিনি আরও স্পষ্ট করে জানিয়েছেন যে ভারত বায়োটেক এক সপ্তাহের মধ্যে মিউটেশনের বিরুদ্ধে কোভাক্সিনের সুরক্ষার ও কার্যকারিতা দেখাতে সক্ষম হবে।

কোভাক্সিন কতটা নিরাপদ?

ডাঃ এলার মতে কোভিড -১৯ প্রতিরোধে বিশ্বের অন্যান্য করোনভাইরাস ভ্যাকসিনের তুলনায় কোভাক্সিন ২০০% নিরাপদ। তবে, বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞ কোভাক্সিনের কার্যকারিতা সম্পর্কিত প্রশ্ন ও সন্দেহের উত্থাপন করেছেন। তাঁরা বলেছেন, ফাইজার, মডার্না, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা এর আগে তাদের করোনভাইরাস ভ্যাকসিনগুলির বিভিন্ন কার্যকারিতা স্তর (Efficiency levels) ঘোষণা করেছিল, যদিও ভারত বায়োটেক তা করে নি। ডাঃ এলা বলেছেন যে ভারত বায়োটেক সংস্থার এই ভ্যাকসিন তৈরির পর্যাপ্ত ডেটা রয়েছে যা ইতিমধ্যেই প্রকাশিত হয়েছে। 

অবশ্যই, কোভাক্সিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হোল তৃতীয় ধাপ বা ফেজ-৩। এই পর্যায়ে ভ্যাকসিন কয়েক হাজার মানুষকে দেওয়া হয় এবং তার কার্যকারিতা ও সুরক্ষার জন্য পরীক্ষা করা হয়। কোভাক্সিনের এই পরীক্ষা এখনো চলছে। যদিও কোম্পানির আশ্বাস যে ভ্যাকসিনটি নিরাপদ এবং সেটি শক্তিশালী প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রদর্শন করে। তবে বেশিরভাগ বিজ্ঞানী এবং স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা এইসব উক্তিটে প্রশ্রয় দেন নি। একটি অল ইন্ডিয়া ড্রাগ অ্যাকশন নেটওয়ার্ক জানিয়েছে যে অসম্পূর্ণভাবে গবেষণা করা ভ্যাকসিন অনুমোদনের বৈজ্ঞানিক যুক্তি কি?। বিজ্ঞানীরা সংশয়বাদী। ভারতের শীর্ষস্থানীয় ভাইরোলজিস্ট ডাঃ শহীদ জামিল জানিয়েছেন যেহেতু কোভাক্সিনের তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার কোনও তথ্য নেই, তাই আমরা জানি না যে এই ভ্যাকসিনটি কতটা কার্যকর। আমরা জানি যে এটি নিরাপদ, তাও সীমিত পর্যায়ের দুটি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে। তাঁর আশঙ্কা, যারা এটি পাবেন তাদের পক্ষে কি ন্যায়বিচার হবে?  

তথ্যসূত্রঃ

  1. https://www.bharatbiotech.com/covaxin.html
  2. https://vaccine.icmr.org.in/covid-19-vaccine
  3. Dutta AK. Vaccine Against Covid-19 Disease – Present Status of Development. Indian J Pediatr. 2020;87(10):810-816. doi:10.1007/s12098-020-03475-w
  4. https://www.bbc.com/news/world-asia-india-55534902
  5. Bakhiet M, Taurin S. SARS-CoV-2: Targeted managements and vaccine development [published online ahead of print, 2020 Dec 1]. Cytokine Growth Factor Rev. 2020;S1359-6101(20)30227-6. doi:10.1016/j.cytogfr.2020.11.001
  6. https://www.bbc.com/news/world-asia-india-55526123
  7. Rawat K, Kumari P, Saha L. COVID-19 vaccine: A recent update in pipeline vaccines, their design and development strategies. Eur J Pharmacol. 2021;892:173751. doi:10.1016/j.ejphar.2020.173751

Write your comments

%d bloggers like this: