বায়ুবাহিত নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আশঙ্কা চিন্তা বাড়াচ্ছে বিজ্ঞানীদের

Reading Time: 3 minutes

ডঃ শুভময় ব্যানার্জী, পি.এইচ.ডি, নিউক্র্যাড হেলথ ডেস্ক, জুলাই ১১, ২০২০

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলেছে একটি বৈজ্ঞানিক তথ্য। সেটি হলো নভেল করোনা সংক্রমণ বায়ুবাহিত হতে পারে। এই দাবী করেছেন বিশ্বের ৩২টি দেশের মোট ২৩৯ জন করোনা বিশেষজ্ঞ। বিখ্যাত গবেষণা পত্রিকা “ক্লিনিক্যাল ইনফেকশিয়াস ডিজিজ” তাঁদের গবেষণার কাজ ইতিমধ্যেই প্রকাশ করেছে। তাতে বলা হয়েছে, শুধুমাত্র কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর হাঁচি, কাশি, কফ থেকে নয়, যখন রোগী কথা বলেন বা নিশ্বাস-প্রশ্বাস নেন সেই সময়েও ভাইরাস কণিকা বাতাসে ভাসমান অবস্থায় থাকে। সুস্থ ব্যক্তি ওই বাতাস নিশ্বাসের সাথে গ্রহণ করলে ব্যক্তিটি ভাইরাসের দ্বারা আক্রান্ত হন। এই ভাবে দ্রুত সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু, কিভাবে ঘটে এই বায়ুবাহিত ভাইরাস সংক্রমণ? জেনে নেওয়া যাক সেই বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা। 

বায়ুবাহিত ভাইরাস:

বৈজ্ঞানিক গবেষণায় দেখা গেছে বায়ুবাহিত ভাইরাসের মধ্যে মিসেলস, ইনফ্লুয়েঞ্জা, করোনাভাইরাস, রাইনোভাইরাস, অ্যাডেনোভাইরাস, রেসপিরেটরি সিন্সিটিয়াল ভাইরাস এবং এন্টেরো ভাইরাস প্রধান। ইতিমধ্যেই বিশ্বে ইনফ্লুয়েঞ্জা, করোনাভাইরাস (SARS-CoV এবং MERS-CoV) অতিমারী বহু মানুষের প্রান কেড়ে নিয়েছে। সংক্রমণযোগ্য ভাইরাস সহজেই ভিড়ের মধ্যে, বদ্ধ দোকানে, রেস্টুরেন্টে এবং স্বল্প পরিসরের ঘরের মধ্যে যেখানে বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা কম সেখানকার মানুষকে আক্রান্ত করে। আসলে এই বায়ুবাহিত ভাইরাসের দরকার হয় “বদ্ধ পরিবেশ” যেখানে ভাইরাস কণিকাগুলি বদ্ধ বাতাসে বেশ কিছুক্ষন ভেসে থাকতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, হাসপাতাল, নার্সিংহোম, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, এরোপ্লেন কেবিন, এয়ার কন্ডিশনেড গাড়ি ইত্যাদি জায়গায় বায়ুবাহিত সংক্রমণ অনেক বেশি হয়। ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থকর্মী যাঁরা জীবিকাসূত্রে দিনের অনেকটা সময় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে অতিবাহিত করেন তাঁরা জীবিকাসূত্রে সংক্রমণ (Occupational Infection) এবং তাঁদের সাথে চিকিৎসার জন্যে আগত রোগী ও তাঁর পরিবার-পরিজনরা নোসোকমিয়াল সংক্রমণের (Nosocomial Infection) শিকার হন। বৈজ্ঞানিক তথ্য অনুযায়ী, অনেক চিকিৎসা-যন্ত্র বা মেডিক্যাল ডিভাইস থেকেও সংক্রমণ ছড়াতে পারে। যেমন- ভেন্টিলেশন, মাস্ক, স্পুটাম ইনকিউবেশন, লাং সার্জারি ইকুইপমেন্টস, নেবুলাইজার ইত্যাদি। বিজ্ঞানীদের ধারণা, ক্রমবর্ধমান দূষণ বায়ুর গুণগত মানকে অনেক কমিয়ে আনে, ফলে ভাইরাস সংক্রমণের তীব্রতা বেড়ে যায়। এই ঘটনাকে প্রভাবিত করে বাতাসের তাপমাত্রা, আপেক্ষিক আদ্রতা, কার্বনডাইঅক্সাইডের ঘনত্ব ইত্যাদি। এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ গবেষণা চলছে। 

বায়ুবাহিত সংক্রমণের ব্যাখ্যা: বর্তমান গবেষণা

অসুস্থ রোগীর হাঁচি, কাশি, শ্বাস ছাড়া, কথা বলার সময় নাক ও মুখ দিয়ে ভাইরাস কণিকা ‘অ্যারোসল’ আকারে বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে। বাতাসে ভাসমান অতি সূক্ষ্য বাষ্পকণার মধ্যে এই সংক্রামক ভাইরাস কণিকাগুলি অবস্থান করে। সাধারণত: অ্যারোসল ৫ মাইক্রোনের কম হয়। সূক্ষ্য অ্যারোসল একত্রিত হয়ে তৈরী করে ৫ মাইক্রোনের বেশি আকারের ‘ড্রপলেট’। এই ড্রপলেট বেশি ভারী হবার জন্যে মেঝেতে ও অন্যান্য স্থানে ছড়িয়ে পড়ে। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, SARS-CoV-2 অ্যারোসলে প্রায় তিন ঘন্টা ভেসে থাকতে পারে। এই সময়ে সুস্থ ব্যক্তি সেই বাতাসে শ্বাসপ্রস্বাস নিলে সংক্রমণের শিকার হবেন। ড্রপলেট আকারে বড়ো হওয়ায় তা নাসারন্ধ্র দিয়ে সহজে ফুসফুসের উপরে ও নিচের অংশে পৌঁছতে পারে না। শুধুমাত্র ন্যাসোফ্যারেনঞ্জিয়াল কোষগুলি প্রথমে আক্রান্ত হয়। কিন্তু অ্যারোসল অত্যন্ত সূক্ষ্য বলে তা সরাসরি ব্রঙ্কাস ও ব্রঙ্কিওলের মাধ্যমে ফুফুসের অ্যালভিওলার প্রাচীরে গিয়ে উপস্থিত হয়। তাই অ্যারোসল জনিত সংক্রমনে কোভিড-১৯ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। 

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা: 

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) পরামর্শ অনুযায়ী, কঠোরভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায়, ত্রিস্তরীয় মাস্কের ব্যবহার (স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্যে এন-৯৫ মাস্ক), সাবান দিয়ে নির্দিষ্ট সময় অন্তর হাত দুয়ে ফেলা, স্যানিটাইজারের ব্যবহার, রোগলক্ষণ দেখা দিলে সেল্ফ আইসোলেশান ও কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা ইত্যাদি মেনে চললে এই সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব। গবেষণায় প্রমাণিত ড্রপলেট ৩.৩ ফুট দূরত্ব অতিক্রম করতে পারে। তাই নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া, বাড়িতে ও কাজের জায়গায় ঠিকমতো বায়ু চলাচলের ব্যাবস্থা রাখতে হবে। ফুসফুস, হার্টের রোগী ও যাদের অন্যান্য রোগের কারনে ইমিউনিটি খুব কম তাঁদের বসবাসের ঘরে এয়ার পিউরিফায়ারের ব্যাবস্থা করলে রোগসংক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।   

http://www.neucrad.com


তথ্যসূত্রঃ

  1. Morawska L, Milton DK. It is Time to Address Airborne Transmission of COVID-19 [published online ahead of print, 2020 Jul 6]. Clin Infect Dis. 2020;ciaa939. doi:10.1093/cid/ciaa939
  2. Setti L, Passarini F, De Gennaro G, et al. Airborne Transmission Route of COVID-19: Why 2 Meters/6 Feet of Inter-Personal Distance Could Not Be Enough. Int J Environ Res Public Health. 2020;17(8):2932. Published 2020 Apr 23. doi:10.3390/ijerph17082932
  3. Morawska L, Cao J. Airborne transmission of SARS-CoV-2: The world should face the reality. Environ Int. 2020;139:105730. doi:10.1016/j.envint.2020.105730
  4. Cascella M, Rajnik M, Cuomo A, Dulebohn SC, Di Napoli R. Features, Evaluation and Treatment Coronavirus (COVID-19). In: StatPearls. Treasure Island (FL): StatPearls Publishing; 2020.
  5. https://www.who.int/news-room/commentaries/detail/modes-of-transmission-of-virus-causing-covid-19-implications-for-ipc-precaution-recommendations
  6. https://www.sciencedirect.com/science/article/pii/S0160412020317876
  7. https://www.nature.com/articles/d41586-020-02058-1

Write your comments

%d bloggers like this: