ভারতে ঘটছে বার্ড ফ্লুর সংক্রমণ: আশঙ্কায় বিজ্ঞানীরা

Reading Time: 3 minutes

শুভময় ব্যানার্জী, পিএইচডি, নিউক্র্যাড হেলথ এর প্রতিবেদন, জানুয়ারী ২৩, ২০২১

সম্প্রতি ভারতে দেখা দিয়েছে বার্ড ফ্লু বা ‘এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা’। ইতিমধ্যেই, দিল্লি সরকার  ঘোষণা করেছেন যে বার্ড ফ্লুর প্রভাবে সাবধানতা অবলম্বনের জন্যে রাজধানীতে জীবন্ত পাখি আমদানি নিষিদ্ধ। বিশেষ করে দিল্লীর গাজীপুরের হাঁস-মুরগির বাজারও আগামী কিছুদিনের জন্য বন্ধ থাকবে। বার্ড ফ্লুর কারণে, রাজস্থানে কিছু কাকের মধ্যে এবং হিমাচল প্রদেশের পং ড্যামে অভিবাসী পাখির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। কেরালায়, পিনারাই বিজয়ন সরকার বার্ড ফ্লুকে রাষ্ট্রীয় বিপর্যয় হিসাবে ঘোষণা করেছে। সেখানকার কর্মকর্তারা রাজ্যের শত শত হাঁসকে অন্যত্র সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। গুজরাট, মধ্য প্রদেশ এবং হরিয়ানা রাজ্য থেকেও পাখির মধ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বার্ড ফ্লু বিবেচনায় কেন্দ্র সমস্ত রাজ্যকে বিষয়টি নজরে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন।

ভারত সরকার এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা নিয়ে কর্ম পরিকল্পনাও সক্রিয় করেছে। এর আওতায় স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে তাদের অঞ্চলে পাখির মধ্যে যে কোনও অস্বাভাবিক  মৃত্যু দেখা গেলে অবিলম্বে সেটি সরকারকে জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পাখি বন্য বা গৃহপালিত যাই হোক না কেন, কোনও ফ্লু জাতীয় লক্ষণ দেখলেই পাখিগুলিকে সাবধানে পর্যবেক্ষণ করা দরকার। কর্মসূচী অনুযায়ী, বার্ড ফ্লুর খবর পাওয়া মাত্র, সরকারী সংস্থা মহামারী সংক্রান্ত তদন্তের জন্য পাখি সংগ্রহ করবে। ক্ষেত্রে, বার্ড ফ্লু যথাযত  শনাক্ত করা, অঞ্চলটি কর্ডোন করা এবং পরিশেষে জীবাণুমুক্ত করা দরকার। মৎস্য, পশুপালন ও ডেয়ারি মন্ত্রকের বিবৃতি অনুসারে ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় পরিদর্শক দলগুলিকে হরিয়ানা, কেরল এবং হিমাচল প্রদেশে মোতায়েন করা হয়েছে। দিল্লির হাসখাস ভিলেজ এবং ময়ূর বিহার অঞ্চলে গত কয়েক দিনে গত এক সপ্তাহে প্রায় ২০০ কাক মারা গেছে। শুধুমাত্র বার্ড ফ্লুজনিত কারণে কাকগুলির মৃত্যু হয়েছিলো কিনা তা জানতে নমুনাগুলি পরীক্ষা করা হচ্ছে।

বার্ড ফ্লুয়ের প্রেক্ষাপট:

বার্ড ফ্লু এর প্রথম ঘটনা চিনে ঘটে। এটি ১৯৯৬ সালে চীন থেকে এই ঘটনাটির কথা প্রকাশিত হয়েছিল। এক বছর পরে, অর্থাৎ ১৯৯৭ সালে, হংকংয়ের একটি পোল্ট্রি শ্রমিক বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হন। তিনি ছিলেন মুরগি থেকে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জায় আক্রান্ত হওয়া প্রথম মানুষ। এর ফলে বার্ড ফ্লুর “ক্রস স্পিসিস ইনফেকশন” কথা প্রমাণিত হলো। বৈজ্ঞানিক গবেষণায় দেখা যায় বার্ড ফ্লু সংক্রমনে মৃত্যুর হার হ’ল অনেক বেশী। সেই কারণেই ভারতে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা নিয়ে বিজ্ঞানীরা আশঙ্কায় আছেন। যদিও এই ক্ষেত্রে মানব-থেকে মানব ইনফেকশন ট্রান্সমিশনের কোথাও খবর পাওয়া যায়নি, তবে অনাক্রম্যতা যাদের কম রয়েছে তাদের সজাগ থাকার প্রয়োজন। কেন্দ্র ডিম ও মুরগি সেবনকারী লোকদের নজর রাখার জন্যও বলেছে। এখনো পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ভারতে মৃত পাখির মধ্যে বার্ড ফ্লুর দুটি স্ট্রেন পাওয়া গেছে। কেরালা, মধ্য প্রদেশ এবং রাজস্থানে গবেষকরা পাখির ফ্লুতে H5N8 স্ট্রেন পেয়েছেন। অন্যদিকে, হিমাচল প্রদেশের মৃত পাখির মধ্যে আরও মারাত্মক H5NI স্ট্রেন পাওয়া গেছে।

নিউক্র্যাড হেলথ নিয়ে আসছে নিউক্র্যাড হেলথ হাব – বাংলায় এক নতুন স্টার্ট আপ ,
এক বাঙালি বিজ্ঞানীর হাত ধরে। নিউক্র্যাড হেলথ হাব এর এন্ট্রেপ্রেনিউরশিপ প্রোগ্রাম এ কোনো পুঁজি না লাগিয়ে অংশ গ্রহণ করতে অথবা জানতে হোয়াট’স আপ করুন +917001105893

জেনেটিক ড্রিফট বার্ড ফ্লু:

ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের প্রকৃতি ও সংক্রমণ তীব্রতা নির্ভর করে, তার খোলকের উপর অবস্থিত দুটি রাসায়নিক গঠনের প্রভাবে, সেগুলি হলো হায়ালুরনিক অ্যাসিড (HA) ও নিউরামিনিডেজ (N)। এদের গঠন ও সংখ্যার তারতম্য হলে ভাইরাসের বিভিন্ন স্ট্রেন তৈরী হয়। মূলত ভাইরাসের জিনে মিউটেশন হলে এই ঘটনাটি ঘটে। একটি ভাইরাসের মিউটেশনের ফলে এই পরিবর্তন ইভোলিউশানের জন্যে স্থায়ী রূপে একটি নতুন প্রকৃতির জন্মদিন দেয়, যার সংক্রমণ ক্ষমতা ভিন্ন। এই ঘটনাকে “জেনেটিক ড্রিফট” বলে। যেমন H1N1 এবং H5N1 স্ট্রেন।

সাধারণ ভাবে, বার্ড ফ্লু একটি মানুষকে সংক্রামিত করে, ভাইরাল রোগটি প্রায় ১০ দিনের জন্য শরীরে থাকে। বার্ড ফ্লুর প্রধান লক্ষণগুলি হ’ল পেশী ব্যথা, গলা ব্যথা, নাক দিয়ে যাওয়া, অস্বস্তি হওয়া, নিয়মিত মাথাব্যথা, জ্বর, ডায়রিয়া, শ্বাসকষ্ট হওয়া ইত্যাদি। তবে রোগ শনাক্ত করার পর চিকিৎসকের পরামর্শে উপযুক্ত ওষুধ এর সাথে পরিমিত জল, বিশ্রাম ইত্যাদি নিলেই এই রোগ ভালো হয়ে যায়।

Subscribe Bengali YouTube Channel: Neucrad Health নিউক্র্যাড হেলথ Bangla

তথ্যসূত্রঃ

1.         https://www.india.gov.in/news_lists?a227668639

2.         Sendor AB, Weerasuriya D, Sapra A. Avian Influenza. [Updated 2020 Jun 3]. In: StatPearls [Internet]. Treasure Island (FL): StatPearls Publishing; 2020 Jan-. Available from: https://www.ncbi.nlm.nih.gov/books/NBK553072/

3.         Peiris JS, de Jong MD, Guan Y. Avian influenza virus (H5N1): a threat to human health. Clin Microbiol Rev. 2007;20(2):243-267. doi:10.1128/CMR.00037-06

4.         https://www.bbc.com/news/world-asia-india-55556030

5.         Neumann G. H5N1 influenza virulence, pathogenicity and transmissibility: what do we know?. Future Virol. 2015;10(8):971-980. doi:10.2217/fvl.15.62

6.         Lycett SJ, Duchatel F, Digard P. A brief history of bird flu. Philos Trans R Soc Lond B Biol Sci. 2019;374(1775):20180257. doi:10.1098/rstb.2018.0257

Write your comments

%d bloggers like this: