ব্রেকিং নিউজ – ইতালির নতুন ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট, টোসিলিজুম্যাব SARS-C0V-2 ভাইরাসের বিরুদ্ধে আশা জাগালো, রক্ত জমাট বেঁধে COVID-19 রোগীদের মধ্যে মারাত্মক জটিলতা

Reading Time: 3 minutes

নিউক্র্যাড হেলথ বাংলা

COVID-19 বিশ্বজুড়ে নজিরবিহীনভাবে সংকট তৈরী করেছে। SARS-COV-2 ভাইরাসের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না ইউরোপের উন্নত দেশগুলো, আমেরিকাতে 100,000 ছাড়িয়েছে মৃতের সংখ্যা। বর্তমানে ভারতে তৃতীয়‌ পর্যায়ের লকডাউন চলছে , প্রতিদিন হাজার হাজার জন মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন করোনায়। বিশ্বজুড়ে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা নিরলস পরিশ্রম করছেন। বিজ্ঞানীরাও নিরলসভাবে নোবেল করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টা চালাচ্ছেন, পাশাপাশি নতুন ওষুধ তৈরীর জন্যও যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন। আসুন, এই মুহূর্তে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ COVID-19 প্রতিরোধকারী ঔষধ বা ভ্যাকসিন তৈরীতে কীরূপ অগ্রগতি করেছে একবার চোখ বুলিয়ে নিই।

????ইতালির বিজ্ঞানীরা তৈরী করলেন এক নতুন ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট:
ইতালীয় ফার্মাসিউটিকাল ফার্ম, “টাকিস্,” দাবী‌ করেছে যে তারা SARS-C0V-2 ভাইরাস বিরুদ্ধে এক ডোজের একটি ভ্যাকসিন তৈরি করেছেন। বিজ্ঞানীরা ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক গবেষণা সুনামধন্য ল্যাজারো স্পালেনজানি ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটে করা হয়েছে। তারা ইঁদুরের দেহে পরীক্ষা করে দেখেছেন, ভ্যাকসিনটি চৌদ্দ দিনের মধ্যে অ্যান্টিবডি তৈরী করতে সক্ষম। “টাকিস্” এর সিইও, লুইজি আউরিসকিও, এই গ্রীষ্মের পরেই শুরু হবে হিউম্যান ট্রায়াল। এই ভ্যাকসিন প্রয়োগের ফলে মানবদেহে যে অ্যান্টিবডি তৈরি হবে তা ভাইরাসটির স্পাইক গুলিকে হোস্টের দেহের সাথে যুক্ত হতে বাধা দেবে।

????টোসিলিজুম্যাব (Tocilizumab) SARS-C0V-2 ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর হতে পারে:-

আমেরিকার ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বিভাগ সম্প্রতি প্রাপ্তবয়স্ক COVID-19 রোগীদের ক্ষেত্রে ‘টোসিলিজুম্যাব’ ওষুধের ক্লিনিকাল ট্রায়ালের অনুমোদন দিয়েছে। এতে করে এই ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা ও কতটা নিরাপদ তা সম্পর্কে জানা যাবে। ক্লিনিকাল ট্রায়ালটির নাম COVACTA দেওয়া হয়েছে এবং বর্তমানে জেনেনটেক এবং বায়োমেডিকাল অ্যাডভান্সড রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (BARDA) এর সহযোগিতায় এগিয়ে চলছে। জেনেনটেকের তরফে জানানো হয়েছে, যে তারা ভবিষ্যতের জন্য ওষুধের 10,000 টি শিশি মার্কিন স্ট্র্যাটেজিক ন্যাশনাল স্টকপাইলকে সরবরাহ করবে।

সর্বশেষ সমীক্ষা অনুসারে, COVID-19 আক্রান্ত রোগীদের দেহে ইনফ্ল্যামেটারি সাইটোকাইন স্ট্রোম দেখা যায়, বাড়াবাড়ি পর্যায়ে রোগীদের মধ্যে অ্যালভিওলার গ্যাস এক্সচেঞ্জকে প্রক্রিয়াটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্যাথোজেনিক টি-সেল এবং ইনফ্ল্যামেটারি মনোসাইটগুলির বিক্রিয়ার ফলে রোগীর দেহে ইনফ্ল্যামেটারি সাইটোকাইন ঝড় দেখা যায়।এমন মনোক্লোনাল অ্যান্টিবডি যেটা IL-6 এর কাজে প্রভাব ফেলে ইনফ্ল্যামেটারি সাইটোকাইন ঝড় হ্রাস করতে সহায়তা করতে পারে। এটি রোগীদের শরীরের তাপমাত্রা নর্মাল করতে সাহায্য করে এবং শ্বাসকষ্টের উপশম ঘটায়। গবেষকরা বিশ্বাস করেন যে ‘টোসিলিজুম্যাব’ করোনা আক্রান্ত রোগীদের মৃত্যুর হার কম করতে সাহায্য করবে।

???? রক্ত জমাট বেঁধে COVID-19 রোগীদের মধ্যে মারাত্মক জটিলতা দেখা দিচ্ছে – বলছে গবেষণা

প্রাথমিকভাবে, বিজ্ঞানীরা ভেবেছিলেন শ্বাসকষ্ট হ’ল COVID -19 সংক্রমণের একটি লক্ষণ। কিন্তু সাম্প্রতিক বিজ্ঞান মহলের কাছে যে তথ্য উঠে এসেছে তা রীতিমতো চমকপ্রদ! করোনভাইরাস রোগীদের দেহে রক্ত জমে যাওয়ার মত একটি প্রাণঘাতী জটিলতা তৈরি করছে। SARS-C0V-2 ভাইরাস নিজেই এই রক্ত জমে যাওয়ার মতো সমস্যা তৈরীর জন্য দায়ী, নাকি এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে মানব শরীরে যে প্রতিরক্ষামূলক ইনফ্লামেটরি রেসপন্স দেখাচ্ছে তার ফলেই রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে, তা এখনো সঠিকভাবে বলতে পারেননি গবেষকরা। তবে রোগীর ফুসফুসের রক্ত যদি একবার জমাট বেঁধে যায় তাহলে মৃত্যুর সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়।

‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর পাবলিক হেলথ, অফ দ্য নেদারল্যান্ডস’ এর বিজ্ঞানীরা এই বিষয়ের উপরে গবেষণামূলক কাজ চালাচ্ছেন। এই গবেষণামূলক কাজটি বিখ্যাত “রেডিওলজি” জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

নিউ জার্সিতে, ক্যামডেনের কুপার ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের এমন একটি কেস পাওয়া গেছে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক বয়স্ক ব্যক্তি এই হসপিটালে ভর্তি হয়েছিলেন পরবর্তীতে দেখা যায় যে রোগীর ফুসফুস এবং ধমনীতে রক্ত জমাট বেঁধে গেছে।
ইউনিভার্সিটি অফ এডিনবার্গের কুইন্স মেডিকেল রিসার্চ ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানী ডাঃ এডউইন জেআর ভ্যান বেক মতামত দিয়েছেন যে রক্তের জমাট বাঁধা কেবল যে ফুসফুসেই হতে পারি তা কিন্তু নয়! পুরো দেহেই এই সমস্যা দেখা দিতে পারে।

বিশ্বজুড়ে কোথায় কি গবেষণা চলছে সে নিয়ে আজকের প্রবন্ধ এটুকুই।‌ এই মহামারী কাটিয়ে আবারও পুরনো ছন্দে ফিরতে আমাদের সকলকে একসাথে লড়তে হবে। সুস্থ থাকুন ভালো থাকুন।

COVID-19 মহামারী চলাকালীন গর্ভবতী মহিলাদের কীভাবে নিজের যত্ন নেওয়া উচিত?
করোনাভাইরাস: আপনার রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থাপনাকে আরো সক্রিয় করে তুলতে কী করনীয়?
করোনা ভাইরাস ও ফুসফুসের সংক্রমণ – কিছু কথা

Write your comments

%d bloggers like this: